হাতে-কলমে পাইথন: পর্ব ০

প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ হিসেবে পাইথন বরাবরই আমার পছন্দের; কিন্তু সমস্যা হল যখন নতুন কাউকে পাইথন শিখতে বলি – কিছুক্ষণ পরেই সে ক্লান্ত হয়ে পড়ে, কোন “কাজের জিনিস” বানাতে না পেরে। তাই এই সিরিজে পাইথন শেখানোর জন্য আমি কিঞ্চিৎ ভিন্ন পদ্ধতিতে আগাবো। আমাদের লক্ষ্য হবে The Daily Star পত্রিকা থেকে খবর সংগ্রহ করে আনার একটি অটোমেটিক সফটওয়্যার বানানোর।

Example

##প্রজেক্টের লক্ষ্য আমাদের সফটওয়্যারটির সাহায্যে ওয়েব ব্রাউজার না খুলেই ডেইলি স্টার পত্রিকার হেডলাইন দেখা যাবে। হেডলাইন বাছাই করে পুরো সংবাদটিও পড়া যাবে! আবার চাইলে সংবাদটিকে সেভ করে রাখা যেতে পারে। অর্থাৎ মোদ্দা কথায় মজার এক জিনিস – যদি নিজে বানাতে পারা যায়। এই সফটওয়্যার বানানোর পথ ধরে ধীরে ধীরে আমরা পাইথনের বিভিন্ন দিকের সঙ্গে পরিচিত হব, আর মজা করব!

যা প্রয়োজন

এখন এই প্রজেক্টটি নিজে নিজে করে ধাপে ধাপে পাইথন শেখার জন্য আপনার দরকার হবে একটি মস্তিষ্ক। কম্পিউটারে লিনাক্স, ম্যাক ওএস বা উইন্ডোজ – একটা থাকলেই চলবে। আর অবশ্যই বড় অজগর সাপ (Anaconda এর বাংলা গুগল ট্রান্সলেটর থেকে নিয়েছি) ইন্সটল করে নিতে হবে নিজের কম্পিউটারে। (Version 3.5 recommended) অ্যানাকন্ডা ইন্সটল করলে আপনি পাইথন প্রোগ্রামিং শুরু করার জন্য যাবতীয় সবকিছু একবারে পেয়ে যাবেন!

(আগে একদম প্রোগ্রামিং করেননি, এমন হয়ে থাকলে হয়ত এই টিউটোরিয়ালগুলি অনুসরণ করতে একটু অসুবিধা হলেও হতে পারে।) /

কিছু প্রশ্নোত্তর

ভাই ডেইলি স্টারের ইংরেজি বুঝা তো দূরের কথা, উচ্চারণই করতে পারি না!

:- ভাই আমিও বুঝি না। প্রোগ্রাম লিখতে তো আর ইংরেজি বুঝা লাগবে না :pআমি অংকে ভালো না…

:- তো কি হইছে? এইটা কি ক্যালকুলাস ক্লাস নাকি? :/

পাইথন ফালতু

সূচীপত্র

স্বরচিত কবিতা রিমিক্স: চোখ এতো লাল কেন

আমি বলছি না ভালবাসতেই হবে,আমি চাই
কেউ একজন আমার জন্য ভোর ৪টা ৪৫ পর্যন্ত অপেক্ষা করুক,
শুধু আমার সাথে বসে আরেকটি প্রজেক্ট হ্যাক করার জন্য।
রাতে একা ডকুমেন্টেশন পড়তে পড়তে আমি এখন ক্লান্ত।

আমি বলছি না ভালবাসতেই হবে,আমি চাই
কেউ আমার মিসিং কোলনটা বসিয়ে দিক।
আমি Valgrind নিয়ে
কাউকে আমার পাশে বসে থাকতে বলছি না,
আমি জানি,এই রুবি-পাইথনের যুগ
ডাইনামিক ল্যাঙ্গুয়েজ নারীকে মুক্তি দিয়েছে মেমরি লিক চেক করার দায় থেকে।
আমি চাই কেউ একজন জিজ্ঞেস করুক
“এই ক্লাসটার রেফারেন্স খুঁজে পাচ্ছো না?”
যে প্রজেক্ট নিয়ে গুতোচ্ছি, সেটার
UI ডিজাইন করা লাগবে কি না।
ব্যাকএন্ড কোডিং আমি নিজেই করতে পারি।

আমি বলছি না ভালবাসতেই হবে,আমি চাই
কেউ একজন বিরক্ত না করে আমাকে Sublime Text 3
চালাতে দিক। কেউ আমাকে কফি খেতে বলুক।
কাম-বাসনার সঙ্গী না হোক, কেউ অন্তত আমাকে
জিজ্ঞেস করুক : ‘সিপিউ টেম্পারেচার ৬০ ডিগ্রি কেন?
ভালো কুলার কিনার ট্যাকা নাই?’